মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

দেবীডুবা ইউনিয়নের ইতিহাস

ইউনিয়ন পরিষদ পরিচিতিঃ

            উপজেলার একেবারে কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত করতোয়া নদী  বিধৌত দেবীডুবা ইউনিয়ন । এর পূর্বে দেবীগঞ্জ

সদর,পশ্চিমে পামুলী, উত্তরে টেপ্রীগঞ্জ এবং দক্ষিনে সুন্দরদীঘি ইউনিয়ন।

নামকরনঃ

            সন্ন্যাসী বিদ্রোহ নেতৃত্বদানকারী দেবী চৌধুরানীর অবাধ বিচরন কেন্দ্র ছিল করতোয়া তীরবর্তী এই জনপদ এখানে তিনি ইংরেজদের সাথে কয়েকটি খন্ড যুদ্ধেও অবর্তীণ হয়েছিল । তার নামেই স্থানটির নাম হয় দেবীডুবা। ১৯৬২ সালের পূর্বে দেবীগঞ্জ মৌজা হওয়ার পূর্বেই ছিল এই দেবীডুবা মৌজা। পরবর্তীকালে ১৯৬২ সালে আলাদা ভাবে দেবীগঞ্জ মৌজা করা হয়। উল্লেখ্য যে, দেবীগঞ্জই ছিল দেবীডুবার অর্ন্তগত।

লক্ষীরহাটঃ

            এই ইউনিয়নের সবচেয়ে প্রসিদ্ধ স্থান হচ্ছে লক্ষীরহাট। হিন্দু অধুষিত এই স্থানটি দেবী লক্ষীর নামেই নাম করণ করা হয়। এখানে একটি ধ্বংস প্রাপ্ত লক্ষীর গড়া ছিল। বর্তমানে স্থানটি ব্যবসা-বাণিজ্যের জন্য বিখ্যাত।

আয়তনঃ ৭৯৩৪ একর

লোক সংখ্যাঃ অনলাইনের জন্ম নিবন্ধন তথ্য অনুসারে লোক সংখ্যা ২৩২৫১ জন ।

      পুরুষ- ১২১৫৯ জন + মহিলা- ১১০৯২জন = ২৩২৫১ জন।

ওয়ার্ড সংখ্যাঃ ০৯ টি

এ্যাসেসম্যানধারী পরিবার সংখ্যাঃ ৪৫৫৬

খোয়াড় সংখ্যাঃ ১০ টি

বিদ্যালয়/মাদ্রাসা/কলেজ সংখ্যাঃ

            প্রাথমিক বিদ্যালয় সংখ্যাঃ ১। সরকারী- ০৮টি, ২। বে- সরকারী- ০৫টি

            মাধ্যমিক বিদ্যালয় সংখ্যাঃ ১। বালক বিদ্যালয় - ২টি, ২। বালিকা- ০১টি

            মাদ্রাসা ঃ ১। এবতেদায়ী- ০৬টি, ২। দাখিল- ০১টি, ৩। হাফিজিয়া- নাই, ৪। কলেজ নাই

মসজিদ- মন্দির সংখ্যাঃ ১। মসজিদ- ৩৩ টি, ২। মন্দির- ৩৩ টি